Delicious Rasgulla Recipe in Bengali || সহজে শিখে নিন রসগোল্লা রেসিপি ||

rasgulla recipe

Rasgulla Recipe in bengali: বাঙালিদের মুখে মিষ্টির কথা উঠলেই, প্রথমেই উঠে আসে রসগোল্লার নাম। যুগ যুগ ধরে বাঙালির মনে প্রানে জায়গা করে আছে এই মিষ্টি। বিয়ে বাড়ি থেকে শুরু করে যে কোনো প্রকার অনুষ্ঠান হোক, শেষ পাতে রসগোল্লা না থাকলে কোনো বিষয়ই সম্পূর্ন হয় না। আগেকার সময় কুটুম বাড়ি গেলে মাটির হাঁড়ি করে রসগোল্লা (rasgulla recipe) নিয়ে যাওয়া হতো। যদিও সেই জিনিসটি আজ আর দেখা যায় না। তবে দিন দিন রসগোল্লার প্রতি বাঙালির ভালোবাসা আরো বেড়ে চলেছে। 

তবে এই রসগোল্লা কীভাবে খুব সহজে বাড়িতে বানিয়ে ফেলা যায় (Easy rasgulla recipe) জানেন কি? আজ সেই রেসিপিই আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করবো। একদম কম উপকরণ দিয়ে কীভাবে বাড়িতে সহজে রসগোল্লা বানানো যায়, তার রেসিপি জেনে নিন এই প্রতিবেদন থেকে।

Also Read: arsalan biryani price list 2023 

রসগোল্লা বানানোর প্রয়োজনীয় উপকরণ (Rasgulla recipe ingredients)

■ দুধ- ১ লিটার।

■ লেবুর রস- পরিমান মতো। 

■ চিনি- ২ কাপ। 

■ কর্নফ্লাওয়ার- ১ চা চামচ। 

■ জল- পরিমান মতো।

Also Read: golbari mutton kosha price

রসগোল্লা বানানোর সহজ পদ্ধতি (Rasgulla in Bengali language)

স্টেপ ১:  দুধ গরম করে নেওয়া

রসগোল্লা তৈরি করার (rasgulla recipe) জন্য এই রেসিপির প্রধান উপকরণ (Bengali rasgulla ingredients) গরুর বা মোষের দুধ  নিতে হবে। রসগোল্লা বানানোর জন্য একটি বিশেষ নিয়মে দুধ গরম করতে হবে।  এর জন্য একটি পাত্রে গ্যাসের চুলায় বসিয়ে তাতে ১ লিটার দুধ গরম করতে বসিয়ে দিতে হবে। এই জায়গায় বলে রাখি, গরুর বা মোষের দুধ দিয়ে সবচেয়ে ভালো রসগোল্লা তৈরি হয়।

তবে আপনি যদি গরুর দুধ না পান তাহলে রসগোল্লা তৈরিতে প্যাকেট দুধও ব্যবহার করতে পারেন। দুধ গরম করার সময় এটি হাতা বা খুন্তি দিয়ে ক্রমাগত নাড়তে হবে, যাতে এর উপর দুধের সর না জমে। দুধ ততক্ষণ গরম করতে হবে, যতক্ষণ না এটি হালকা হালকা ফুটতে শুরু করে। যখন দেখবেন দুধ হালকা ফুটতে শুরু করেছেন, তখন গ্যাসের ফ্লেম বন্ধ করে দুধ ঠান্ডা হতে দেবেন ৭ থেকে ৮ মিনিট। 

স্টেপ ২: দুধ কেটে ছানা প্রস্তুতি

এবার ফুটিয়ে নেওয়া দুধ ঠান্ডা করার পর তা থেকে ছানা বের করে নেওয়ার পালা (rasgulla recipe)। এর জন্য আগে আমাদের একটি বড় সাইজের পাতি লেবু থেকে রস বের করে নিতে হবে। ১ লিটার দুধের জন্য ১.৫ টেবিল চামচ লেবুর রস প্রয়োজন হবে। এই লেবুর রসের সঙ্গে সম পরিমান জল মিশিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করে নিতে হবে। আপনি চাইলে এই জায়গায় ভিনিগারও ব্যবহার করতে পারেন। এবার লেবু ও জল মিশ্রিত রস দুধের মধ্যে দিয়ে ক্রমাগত নাড়তে থাকুন। এক সময় দেখবেন দুধ কেটে ছানা ও সবুজ রঙের জল আলাদা হয়ে গেছে। 

এবার একটি বায়োল নিয়ে তারপর ছাঁকনি রাখুন এবং ছাঁকনির উপর একটি সুতির কাপড় মেলে দিন। এবার জল সহ ছানা কাপড়ের উপর ডেলে দিন। সঙ্গে সঙ্গে কিছুটা ঠান্ডা জল ছানার উপরে দিয়ে দিন। এতে করে ছানাতে দেওয়া লেবুর রস বা ভিনিগার ঝরে বেরিয়ে যায় এবং ছানা থেকে লেবুর খাট্টা ভাব দূর হয়। তারপর সুতির কাপড় ভালো করে মুড়ে ছানা থেকে সমস্ত জল নিগড়ে ফেলতে হবে। এর জন্য একটি বিশেষ পদ্ধতি বা উপায় অবলম্বন করতে পারেন। সুতির কাপড়ে ছানা ছেঁকে নেওয়ার পর জল ঝরানোর জন্য তার উপর একটি ভারি জিনিস চাপিয়ে রেখে দিন বেশ কিছুক্ষণ। দেখবেন ছানা থেকে সমস্ত জল ঝড়ে দিয়েছে (rasgulla recipe)। 

স্টেপ ৩: ছানার মাখা ও বল তৈরি করে নেওয়া

এবার আমরা রসগোল্লা তৈরির (rasgulla recipe) গুরুত্বপূর্ণ ধাপে প্রবেশ করছি। এই ধাপে আমরা জল ঝরিয়ে নেওয়া ছানা মেখে নেব। ছানা মেখে নেওয়ার জন্য একটি কাঠের পাটাতন বা বড় কোনো কাঠের থালা নিয়ে নেব। আপনার কাছে কাঠের পাঠাতন না থাকলে এমনি লোহা বা স্টিলের প্লেটেও ছানা মেখে নিতে পারেন। ছানা মাখার জন্য আমরা হাতের তালু ব্যবহার করবো। হাতের তালু দিয়ে দীর্ঘক্ষন ধরে ছানা ডলে ডলে ছেনে নিতে হবে। ই জায়গায় ছানার সঙ্গে দিয়ে দিতে হবে ১ চা চামচ কর্নফ্লাওয়ার মিশিয়ে নিয়ে, এটা ততক্ষণ ডলতে হবে যতক্ষন না এটা মসৃন হয়। কমপক্ষে ১৫ মিনিট ছানা ডলার পর দেখবেন ছানা খুবই মসৃন হয়ে গেছে এবং এই মধ্যে কোনো দানা দানা ভাব নেই। তাহলে বুঝবেন ছানা মাখা প্রস্তুত। 

ছানা ভালো করে মাখা হয়ে গেলে এবার ছানা থেকে বল প্রস্তুত করে নিতে হবে। দুই হাতের তালুতে কিছুটা ছানা নিয়ে গোল গোল করে নিতে হবে। ১ লিটার দুধ থেকে যে ছানা হবে, তাতে মিডিয়াম সাইজের মোটামুটি ১০টি ছানার বল অর্থাৎ রসগোল্লা তৈরি করা যাবে। তবে রসগোল্লার পিস নির্ভর করবে আপনি কেমন সাইজের রসগোল্লা বানাচ্ছেন তার উপর। 

স্টেপ ৪: চিনির রস প্রস্তুত প্রনালী

এবার রসগোল্লা (rasgulla recipe) বানানোর জন্য চিনির সিরাপ তৈরি করে নিতে হবে। এর জন্য একটি বড় পাত্র গ্যাসের চুলায় বসিয়ে তাতে ৪ কাপ জল এবং ২ চাপ চিনি দিতে হবে। তারপর একবার নেড়ে দিয়ে বেশ কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতে হবে, যতক্ষণ না চিনির রস টগ বক করে ফুটতে শুরু করে। 

স্টেপ ৫: রসে রসগোল্লা যোগ করুন

চিনির রস ফুটতে শুরু করলে, ফুটন্ত চিনির রসে এবার একে একে ছানার বল দিয়ে দিতে হবে। মনে রাখবেন এক সঙ্গে সব ছানার বল দিয়ে দেবেন না। এতে করে চিনির রসের তাপমাত্রা কমে যাবে এবং রসগোল্লা নরম হবে না। ছানার বল সিরাপে দেওয়ার পর একটা ঢাকনা দিয়ে পাত্রের মুখ ঢেকে দিন এবং ২০ থেকে ২৫ মিনিট সিরাপের ফুটন্ত রসে ছানার বলগুলোকে সাঁতার কাটতে দিন। 

২৫ মিনিট পর ঢাকনা খুলে দেখবেন রসগোল্লা একদম প্রস্তুত। তারপর গ্যাসের চুলা বন্ধ করে আরো ৪ থেকে ৫ ঘন্টা এমনি রেখে দিন। ঠান্ডা হলে পরিবেশন করুন রসগোল্লা। তাহলে শিখে গেলেন কীভাবে খুব সহজে বাড়িতে বানিয়ে ফেলা যায় রসগোল্লা (Rasgulla in Bengali font)। তাহলে চটপট বাড়িতে বানিয়ে ফেলুন এই রেসিপি। আর আমাদের জানান আজকের রেসিপিটি আপনাদের কেমন লাগলো।  

রসগোল্লা বানানোর গুরুত্বপূর্ণ টিপস: 

■ রসগোল্লা বানানোর (rasgulla recipe) খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় ছানা কাটানো। মনে রাখবেন ফুটন্ত গরম দুধে দুধ  লেবুর রস বা ভিনিগার দিয়ে কখনোই ছানা কাটবেন না। এভাবে ছানা কাটলে, ছানা খুব শক্ত ও চিবে তৈরি হয়। ফলে রসগোল্লা নরম বা স্পঞ্জের মতো হয় না। তাই রসগোল্লার স্পঞ্জের মতো বানাতে হলে  ছানা কাটানোর সময় এটি অবশ্যই খেয়াল রাখবেন। 

■ রসগোল্লা বানানোর ( Rasgulla Recipe ) দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ টিপস, লেবু বা ভিনিগার সরাসরি দুধের মধ্যে দেবেন না। কারণ লেবু বা ভিনিগারে থাকে অ্যাসিড, যা সরাসরি দুধে দেওয়ার ফলে ছানা বেশ শক্ত ও চিবে হয়। এতে করে রসগোল্লা সফট হয় না। তাই লেবুর রস বা ভিনিগার ব্যবহার করার সময় অবশ্যই জল মিশিয়ে ব্যবহার করবেন। এ ক্ষেত্রে লেবুর রস ব্যবহার করলে এতে সমপরিমান জল এবং ভিনিগার ব্যবহার করলে তাতে দ্বিগুন জল মেশাতে হবে।

■ ছানা মাখা ঠিক হয়েছে কি বুঝতে গেলে সবচেয়ে সহজ উপায়, ছানার একটা বল বানিয়ে নিন। সেই বলে ভেঙে না যায় তাহলে বুঝবেন ছানা মাখা একদম পারফেক্ট হয়েছে। 

■ রসগোল্লা (Rasgulla in Bengali language pronunciation) বানানোর জন্য আরো একটি গুরুত্বপূর্ণ টিপস হলো, মিষ্টি বাননোর জন্য সর্বদা বড় সাইজের হাঁড়ি ব্যবহার করবেন। আর একসঙ্গে  অধিক পরিমান ছানার বল দিয়ে দেবেন না। এতে করে ছানার বল ঠিক ভাবে ফুলবে না এবং গোল শেপ পাবে না। তাই ফুটন্ত সিরাপে অল্প অল্প ছানার বল দেবেন, যাতে সিরাপের মধ্যে ছানার বল সাঁতার কাটতে পারে।

Rasgulla

Rasgulla Recipe in Bengali: Rasgulla is a famous sweet dish dipped in sugar syrup and is famous all over the world. Check out how to make rasgulla at home.
Prep Time 20 minutes
Cook Time 30 minutes
Total Time 50 minutes
Course Appetizer
Cuisine Bengali, Indian
Servings 4 People

Ingredients
  

  • দুধ- ১ লিটার।
  • লেবুর রস- পরিমান মতো।
  • চিনি- ২ কাপ।
  • কর্নফ্লাওয়ার- ১ চা চামচ।
  • জল- পরিমান মতো।

Instructions
 

স্টেপ ১:  দুধ গরম করে নেওয়া

  • রসগোল্লা তৈরি করার (rasgulla recipe) জন্য এই রেসিপির প্রধান উপকরণ (Bengali rasgulla ingredients) গরুর বা মোষের দুধ  নিতে হবে। রসগোল্লা বানানোর জন্য একটি বিশেষ নিয়মে দুধ গরম করতে হবে।  এর জন্য একটি পাত্রে গ্যাসের চুলায় বসিয়ে তাতে ১ লিটার দুধ গরম করতে বসিয়ে দিতে হবে। এই জায়গায় বলে রাখি, গরুর বা মোষের দুধ দিয়ে সবচেয়ে ভালো রসগোল্লা তৈরি হয়।
  • তবে আপনি যদি গরুর দুধ না পান তাহলে রসগোল্লা তৈরিতে প্যাকেট দুধও ব্যবহার করতে পারেন। দুধ গরম করার সময় এটি হাতা বা খুন্তি দিয়ে ক্রমাগত নাড়তে হবে, যাতে এর উপর দুধের সর না জমে। দুধ ততক্ষণ গরম করতে হবে, যতক্ষণ না এটি হালকা হালকা ফুটতে শুরু করে। যখন দেখবেন দুধ হালকা ফুটতে শুরু করেছেন, তখন গ্যাসের ফ্লেম বন্ধ করে দুধ ঠান্ডা হতে দেবেন ৭ থেকে ৮ মিনিট।

স্টেপ ২: দুধ কেটে ছানা প্রস্তুতি

  • এবার ফুটিয়ে নেওয়া দুধ ঠান্ডা করার পর তা থেকে ছানা বের করে নেওয়ার পালা (rasgulla recipe)। এর জন্য আগে আমাদের একটি বড় সাইজের পাতি লেবু থেকে রস বের করে নিতে হবে। ১ লিটার দুধের জন্য ১.৫ টেবিল চামচ লেবুর রস প্রয়োজন হবে। এই লেবুর রসের সঙ্গে সম পরিমান জল মিশিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করে নিতে হবে। আপনি চাইলে এই জায়গায় ভিনিগারও ব্যবহার করতে পারেন। এবার লেবু ও জল মিশ্রিত রস দুধের মধ্যে দিয়ে ক্রমাগত নাড়তে থাকুন। এক সময় দেখবেন দুধ কেটে ছানা ও সবুজ রঙের জল আলাদা হয়ে গেছে।
  • এবার একটি বায়োল নিয়ে তারপর ছাঁকনি রাখুন এবং ছাঁকনির উপর একটি সুতির কাপড় মেলে দিন। এবার জল সহ ছানা কাপড়ের উপর ডেলে দিন। সঙ্গে সঙ্গে কিছুটা ঠান্ডা জল ছানার উপরে দিয়ে দিন। এতে করে ছানাতে দেওয়া লেবুর রস বা ভিনিগার ঝরে বেরিয়ে যায় এবং ছানা থেকে লেবুর খাট্টা ভাব দূর হয়। তারপর সুতির কাপড় ভালো করে মুড়ে ছানা থেকে সমস্ত জল নিগড়ে ফেলতে হবে। এর জন্য একটি বিশেষ পদ্ধতি বা উপায় অবলম্বন করতে পারেন। সুতির কাপড়ে ছানা ছেঁকে নেওয়ার পর জল ঝরানোর জন্য তার উপর একটি ভারি জিনিস চাপিয়ে রেখে দিন বেশ কিছুক্ষণ। দেখবেন ছানা থেকে সমস্ত জল ঝড়ে দিয়েছে (rasgulla recipe)।

স্টেপ ৩: ছানার মাখা ও বল তৈরি করে নেওয়া

  • এবার আমরা রসগোল্লা তৈরির (rasgulla recipe) গুরুত্বপূর্ণ ধাপে প্রবেশ করছি। এই ধাপে আমরা জল ঝরিয়ে নেওয়া ছানা মেখে নেব। ছানা মেখে নেওয়ার জন্য একটি কাঠের পাটাতন বা বড় কোনো কাঠের থালা নিয়ে নেব। আপনার কাছে কাঠের পাঠাতন না থাকলে এমনি লোহা বা স্টিলের প্লেটেও ছানা মেখে নিতে পারেন। ছানা মাখার জন্য আমরা হাতের তালু ব্যবহার করবো। হাতের তালু দিয়ে দীর্ঘক্ষন ধরে ছানা ডলে ডলে ছেনে নিতে হবে। ই জায়গায় ছানার সঙ্গে দিয়ে দিতে হবে ১ চা চামচ কর্নফ্লাওয়ার মিশিয়ে নিয়ে, এটা ততক্ষণ ডলতে হবে যতক্ষন না এটা মসৃন হয়। কমপক্ষে ১৫ মিনিট ছানা ডলার পর দেখবেন ছানা খুবই মসৃন হয়ে গেছে এবং এই মধ্যে কোনো দানা দানা ভাব নেই। তাহলে বুঝবেন ছানা মাখা প্রস্তুত।
  • ছানা ভালো করে মাখা হয়ে গেলে এবার ছানা থেকে বল প্রস্তুত করে নিতে হবে। দুই হাতের তালুতে কিছুটা ছানা নিয়ে গোল গোল করে নিতে হবে। ১ লিটার দুধ থেকে যে ছানা হবে, তাতে মিডিয়াম সাইজের মোটামুটি ১০টি ছানার বল অর্থাৎ রসগোল্লা তৈরি করা যাবে। তবে রসগোল্লার পিস নির্ভর করবে আপনি কেমন সাইজের রসগোল্লা বানাচ্ছেন তার উপর।

স্টেপ ৪: চিনির রস প্রস্তুত প্রনালী

  • এবার রসগোল্লা বানানোর জন্য চিনির সিরাপ তৈরি করে নিতে হবে। এর জন্য একটি বড় পাত্র গ্যাসের চুলায় বসিয়ে তাতে ৪ কাপ জল এবং ২ চাপ চিনি দিতে হবে। তারপর একবার নেড়ে দিয়ে বেশ কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতে হবে, যতক্ষণ না চিনির রস টগ বক করে ফুটতে শুরু করে।

স্টেপ ৫: রসে রসগোল্লা যোগ করুন

  • চিনির রস ফুটতে শুরু করলে, ফুটন্ত চিনির রসে এবার একে একে ছানার বল দিয়ে দিতে হবে। মনে রাখবেন এক সঙ্গে সব ছানার বল দিয়ে দেবেন না। এতে করে চিনির রসের তাপমাত্রা কমে যাবে এবং রসগোল্লা নরম হবে না। ছানার বল সিরাপে দেওয়ার পর একটা ঢাকনা দিয়ে পাত্রের মুখ ঢেকে দিন এবং ২০ থেকে ২৫ মিনিট সিরাপের ফুটন্ত রসে ছানার বলগুলোকে সাঁতার কাটতে দিন।
  • ২৫ মিনিট পর ঢাকনা খুলে দেখবেন রসগোল্লা একদম প্রস্তুত। তারপর গ্যাসের চুলা বন্ধ করে আরো ৪ থেকে ৫ ঘন্টা এমনি রেখে দিন। ঠান্ডা হলে পরিবেশন করুন রসগোল্লা। তাহলে শিখে গেলেন কীভাবে খুব সহজে বাড়িতে বানিয়ে ফেলা যায় রসগোল্লা (Rasgulla in Bengali font)। তাহলে চটপট বাড়িতে বানিয়ে ফেলুন এই রেসিপি। আর আমাদের জানান আজকের রেসিপিটি আপনাদের কেমন লাগলো।

Notes

■ রসগোল্লা বানানোর (rasgulla recipe) খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় ছানা কাটানো। মনে রাখবেন ফুটন্ত গরম দুধে দুধ  লেবুর রস বা ভিনিগার দিয়ে কখনোই ছানা কাটবেন না। এভাবে ছানা কাটলে, ছানা খুব শক্ত ও চিবে তৈরি হয়। ফলে রসগোল্লা নরম বা স্পঞ্জের মতো হয় না। তাই রসগোল্লার স্পঞ্জের মতো বানাতে হলে  ছানা কাটানোর সময় এটি অবশ্যই খেয়াল রাখবেন। 
■ রসগোল্লা বানানোর দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ টিপস, লেবু বা ভিনিগার সরাসরি দুধের মধ্যে দেবেন না। কারণ লেবু বা ভিনিগারে থাকে অ্যাসিড, যা সরাসরি দুধে দেওয়ার ফলে ছানা বেশ শক্ত ও চিবে হয়। এতে করে রসগোল্লা সফট হয় না। তাই লেবুর রস বা ভিনিগার ব্যবহার করার সময় অবশ্যই জল মিশিয়ে ব্যবহার করবেন। এ ক্ষেত্রে লেবুর রস ব্যবহার করলে এতে সমপরিমান জল এবং ভিনিগার ব্যবহার করলে তাতে দ্বিগুন জল মেশাতে হবে।
■ ছানা মাখা ঠিক হয়েছে কি বুঝতে গেলে সবচেয়ে সহজ উপায়, ছানার একটা বল বানিয়ে নিন। সেই বলে ভেঙে না যায় তাহলে বুঝবেন ছানা মাখা একদম পারফেক্ট হয়েছে। 
■ রসগোল্লা (Rasgulla in Bengali language pronunciation) বানানোর জন্য আরো একটি গুরুত্বপূর্ণ টিপস হলো, মিষ্টি বাননোর জন্য সর্বদা বড় সাইজের হাঁড়ি ব্যবহার করবেন। আর একসঙ্গে  অধিক পরিমান ছানার বল দিয়ে দেবেন না। এতে করে ছানার বল ঠিক ভাবে ফুলবে না এবং গোল শেপ পাবে না। তাই ফুটন্ত সিরাপে অল্প অল্প ছানার বল দেবেন, যাতে সিরাপের মধ্যে ছানার বল সাঁতার কাটতে পারে।
Keyword Rasgulla

I am an Engineer by Profession but a blogger by Passion. Love to explore different food options and recipes and also love to share the same with you.

Leave a comment

Recipe Rating




Open chat
1
Scan the code
Welcome to FoodiePrice
Hello 👋
Can we help you?